• Home
  • Social Media

কীভাবে ইউটিউবে দ্রুত সফলতা পাবেন ? এগুলি মেনে চলুন !

ইউটিউব এখন আমাদের সবাইকার মধ্যেই একটা নতুন সেনসেশন এ পরিণত হয়েছে। আর হবে নাই বা কেন এর সাহায্যে সবাই সুযোগ পাচ্ছে তাদের লুকানো প্রতিভা কে প্রকাশ করতে।

শুধু তাই নয় এর থেকে থাকছে টাকা উপায় করার সুযোগও এবং রাতারাতি বিখ্যাত হয়ে যাওয়ার সুযোগ । 

এই সমস্ত সুযোগ-সুবিধা একসাথে আগে কখনো পাওয়া যায়নি এবং এটা করতে আপনাকে কোন টাকা খরচ করতে হবে না ।  আপনি শুধু আপনার পছন্দের জিনিসটি করবেন এবং পেয়ে যাবেন সেখান থেকে টাকা উপার্জন করারও সুযোগ।

ইউটিউব এখন আমাদের সবাইকার মধ্যেই একটা নতুন সেনসেশন এ পরিণত হয়েছে। আর হবে নাই বা কেন এর সাহায্যে সবাই সুযোগ পাচ্ছে তাদের লুকানো প্রতিভা কে প্রকাশ করতে। শুধু তাই নয় এর থেকে থাকছে উপায় করার সুযোগও এবং রাতারাতি বিখ্যাত হয়ে যাওয়ার সুযোগ ।

এত সব কিছু বিষয়ের কথা মাথায় রেখে ইউটিউব এখন সবাইকার মধ্যে অত্যন্ত জনপ্রিয়। 

কীভাবে ইউটিউবে সফলতা পাবেন ? এগুলি মেনে চলুন ! Click To Tweet

তবে ইউটিউবে সফলতা পাওয়া এখন অত্যন্ত কঠিন হয়ে গেছে। কারণ এখন  ঘরে ঘরেই গড়ে উঠেছে ইউটিউব চ্যানেল এবং ক্রিয়েটারের সংখ্যা বেড়ে চলেছে প্রতিনিয়ত। ইউটিউবে সফলতা পেতে গেলে প্রথম থেকেই আপনাকে নির্দিষ্ট কিছু নিয়মাবলী মেনে চলতে হবে । 

আমরা এর আগেও আলোচনা করেছি : একটি ইউটিউব চ্যানেল শুরু করার জন্য কোন কোন গিয়ার লাগবে ? ও YouTuber-দের জন্য শ্রেষ্ঠ বাজেট DSLR কোনটি ? এগুলি অবশ্যই পড়ে নেবেন ! অনেক সাহায্য পাবেন !

এই নিয়মাবলী গুলি মেনে চললে আপনার সফলতা নিশ্চিত। তাই এই আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ পড়ুন এবং প্রত্যেকটি পয়েন্ট আপনার ইউটিউব জার্নিতে সফলভাবে প্রয়োগ করুন। সফলতা আসবেই। 

কীভাবে ইউটিউবে সফলতা পাবেন ?

আপনার নিজের প্যাশন খুজে বের করুন :

ইউটিউবে সফলতা পাওয়ার মানে এই নয় যে অন্যান্যরা যা করছে আপনাকেও তাই করতে হবে। কেউ কুকিং চ্যানেল খুলতে পারে, কেউ Vloging চ্যানেল খুলতে পারে, কেউ ড্রয়িং চ্যানেল খুলতে পারে, তার মানে এই নয় যে আপনাকে তাদের পদাঙ্ক অনুসরণ করতে হবে।

আপনি প্রথমেই ভাবুন আপনি কোন কাজটি করতে সবথেকে বেশি আনন্দ পান অর্থাৎ আপনার প্যাশান কোনটি। তা হতে পারে  আপনার ছবি আঁকা, হতে পারে ফটোগ্রাফি, তা হতে পারে ভিডিও ক্রিয়েশন বা হতে পারে গিটার বাজানো বা হতে পারে যেকোনো মিউজিক ইন্সট্রুমেন্ট বাজানো । 

এমন একটি বিষয় আপনাকে খুঁজে বার করতে হবে যা করতে আপনি কখনোই বোরহয়ে যান না এবং সেইটির উপরই আপনি চ্যানেল খুলুন। এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি পয়েন্ট ।  আপনি যা পছন্দ করেন না সেই বিষয়ের উপর চ্যানেল খুললে কয়েকদিন করার পরই আপনি বোর হয়ে যাবেন এবং সেটিকে চালিয়ে যেতে পারবেন না এইটা মাথায় রাখুন। 

ভিডিও আপলোডের নির্দিষ্ট রুটিন মেনে চলুন :

অনেককেই দেখা যায় ইউটিউব চ্যানেল খোলার পরপরই অত্যন্ত রকম এক্সাইটেড হয়ে দু একদিন ভিডিও দেওয়ার পর তাদের এক্সাইটমেন্ট হারিয়ে ফেলে এবং সেই চ্যানেলটি বন্ধ হয়ে যায়।

আপনি আপনার প্যাশন খুজে বার বার করলেও সেটিকে ভিডিও রেকর্ড করা এডিট করা তারপর সঠিকভাবে ইউটিউবে আপলোড করার মধ্যে অনেক সময় চলে যায়। তাই চ্যানেল খোলার আগেই আপনি এটি কয়েকবার করে দেখুন। কি কি সমস্যায় পড়তে হচ্ছে তা নোট করুন এবং সে সমস্যা থেকে বেরিয়ে আসার সমাধান খুঁজুন।

ইউটিউবে ভিডিও দেওয়া শুরু করলে আপনাকে একটি নির্দিষ্ট রুটিন মেনে ভিডিও দিতে থাকতেই হবে। যেমন সপ্তাহে দুদিন বা তিন দিন বা প্রত্যেকদিন।  তাই কনসিসটেন্সি বজায় রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ইউটিউবে ।  আপনি কনসিসটেন্সি বজায় না রাখলে ইউটিউব এলগরিদম অটোমেটিক আপনার চ্যানেলকে  অন্যান্যদের থেকে পিছনে ফেলে দেবে।

ইন্টারাক্সন বজায় রাখুন :

আপনার ইউটিউব চ্যানেলে ভিউয়াররাই হচ্ছে প্রথম ও শেষ কথা ।  তাদের জন্যই আপনি ভিডিও তৈরি করছেন, তাদের জন্যই আপনি খাটাখাটনি করে এডিট করছেন এবং তাদের জন্যই আপনি ইউটিউবে আপলোড করছেন। তারা ছাড়া আপনার সফলতা অসম্ভব।

দেখেনিন আজকের অসাধারণ সব শ্রেষ্ঠ ডিলস

তাই আপনার ভিউয়ার দের সাথে ভালো সম্পর্ক বজায় রাখুন। তাদের কমেন্টের উত্তর দিন, তাদের সাথে শুভ সম্পর্ক গড়ে তুলুন তারাও আপনাকে ভালোবাসা ফেরত দেবে। কখনো কোন খারাপ শব্দ ব্যবহার করবেন না। তাদের সাথে একই পরিবারের মতো সম্পর্ক করলেই তারা আপনাকে তাদের পরিবারেরই একজন ভাববে ।

সময় নষ্ট করবেন না :

ইউটিউব এর পিছনে কিছুটা সময় দিন তাহলেই হবে। এখনকার দিনে ইউটিউবে সবাই আসতে  চায় । অনেকে নিজেদের পড়াশোনা ছেড়ে দিয়ে ইউটিউব একাউন্ট খোলার জন্য উঠে পড়ে লেগেছে। কিন্তু একটা কথা বলে রাখা ভালো পড়াশোনা আপনার সব জায়গায় প্রয়োজন দেবে। এমনকি ইউটিউব সঠিকভাবে চালনা করতে ও পড়াশোনার প্রয়োজন।

আরও পড়ুন : আপনি ফেসবুকে কতটা সময় কাটিয়েছেন তা কীভাবে জানবেন ?

তাই পড়াশোনাতে সব থেকে বেশি মন দিন এবং আপনার অবশিষ্ট সময়ে আপনি ইউটিউব চ্যানেল অনায়াসে চালিয়ে নিতে পারবেন ।  শুধু আপনার ফোকাস বজায় রাখুন এবং কন্টেন্ট ক্রিয়েশন এর উপর নজর দিন। বাকি সব আপনি নিজে নিজেই আসতে থাকবে। 

সর্বোপরি :

চ্যানেলে ভিডিও দেওয়ার পর থেমে থাকলে চলবে না। আপনার অডিয়েন্সের সাথে যোগাযোগ বজায় রাখুন। প্রতিনিয়ত তাদের জন্য শ্রেষ্ঠ ভিডিও দিতে থাকুন। তাদের কমেন্টের উত্তর দিন এবং প্রয়োজনে তাদের সমস্যার সমাধান দিন। সর্বোপরি তাদের ভ্যালু প্রভাইড করুন ! 

সফলতা আসবেই ।

আপনাকে আগাম শুভেচ্ছা।

কেমন লাগলো এই গাইড তা নীচে কমেন্ট করে আমাদের অবশ্যই জানাবেন ! কোন প্রশ্ন থাকলেও তা আমাদের জানাতে ভুলবেন না !

আমাদের সমস্ত আপডেট সরাসরি পেতে Facebook , Twitter ও Instagram -এ তে আমাদের সঙ্গে থাকুন ও শ্রেষ্ঠ থাকুন !

 

Click Here to Leave a Comment Below 0 comments

Leave a Reply:

error: Content is protected !!